দেখে নিন ব্রাউজার ইনকগনিটো ট্যাব আপনার ব্রাউজিং ডাটাবেজ কতোটা সিকিউরড রাখে।

দেখে নিন ব্রাউজার ইনকগনিটো ট্যাব আপনার ব্রাউজিং ডাটাবেজ কতোটা সিকিউরড রাখে।

ইন্টারনেট ব্যবহার করে না এমন মানুষ বর্তমান  দাড়িয়ে খুঁজে পাওয়া অসম্ভব প্রায়।

আমরা সকলেই কিন্তু ধরে নিলে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে জানি বা ব্যবহার করি। ইন্টারনেট ব্যবহার এর কারণে আমাদের জীবনকে আরও সুন্দর এবং আরও সহজ ভাবে গুছিয়ে নিতে পারী, ইন্টারনেট আমাদের জীবনের অনেক বড় একটা অংশ হিসাবে কাজ করছে।

আপনাদের প্রিয় টেকনোলোজি প্লাটফর্ম ট্রিকরেড এ যখন আপনি প্রবেশ করেন বেশী ভাগ মানুষকেই দেখা যাই তারা ব্রাউজার ব্যবহার করে ট্রিকরেড এ প্রবেশ করেন। বর্তমান সকল ওয়েব ব্রাউজার গুলো এমন সুন্দর সেবা প্রদান করে যা দেখে সকলেই বেশ মুগ্ধকর।

বর্তমান সকল ডেস্কটপ, ল্যাপটপ অথবা স্মার্টফোন এর ব্রাউজার গুলো বেশ দারুন উন্নতি করেছে। সকল ব্রাউজার অনুসন্ধান করলেই দেখা যাবে ইনকগনিটো মোড রয়েছে।

ব্রাউজার ইনকগনিটো ট্যাব আপনার ব্রাউজিং ডাটাবেজ কতোটা সিকিউরড রাখে
ব্রাউজার ইনকগনিটো ট্যাব আপনার ব্রাউজিং ডাটাবেজ কতোটা সিকিউরড রাখে

আমরা যখন অতি গুরুত্বপূর্ণ কোনো ওয়েবসাইট অথবা ওয়েবপেজ ইত্যাদি ভিজিট করি পার্সোনাল দরকার এ তখন সকলেই কিন্তু ইনকগনিটো মোড ব্যবহার করেন, আমি অগণিত মানুষের দেখেছি এমনটাই। এই ইনকগনিটো মোড ব্যবহার করার কারণ আমরা চাই না যে আমরা ছাড়া অন্য কোনো দ্বিতীয় মানুষ আমাদের ব্রাউজার এর ডাটাবেজ দেখুক বা জানুক।

ইনকগনিটো মোড ব্যবহার করার পর যখন আমাদের কাজ শেষ হয়ে যাই ঠিক তখন আমরা ইনকগনিটো মোড এর ট্যাবটা ক্লোজ করে দিয়ে থাকী এবং আমরা ভেবে নিই আমরা যে ওয়েবসাইট এবং ওয়েবপেজ ইত্যাদি ব্রাউজিং করলাম সেটা আমরা নিজেরা ছাড়া অন্য কেউ দেখতে অথবা জানতে পারলো না। আমি আজকে আপনাদের এই বিষয় নিয়েই আলোচনা করবো যে ইনকগনিটো মোড আমাদের জন্য ঠিক কতোটা সিকিউরড।

আপনি যখন আপনার পার্সোনাল কোনো কাজে ব্যবহার এর জন্য ব্রাউজার এর ইনকগনিটো ট্যাব(Incognito tab) ওপেন করেন, ঠিক তখনি আপনার ব্রাউজার একটি নতুন ব্রাউজিং সেশন তৈরি করে দিয়ে থাকে। ওই সেশন এ আগে থেকে সেভ করা কোনো ব্রাউজিং ক্যাশ, হিস্টোরি বা কোনো কুকিজ স্টোর করা থাকে না। এই নতুন সেশনে আপনি যা যা ব্রাউজ করেন, তা থেকে জেনারেট হওয়া ক্যাশ এবং কুকিজ টেম্পোরারি ভাবে এই নতুন ব্রাউজিং সেশনে সেভ করা হয়। আপনি যে সময় ইনকগনিটো মোড বা ইনকগনিটো ট্যাবটি ক্লোজ করে দেন, তখনই এই নতুন ব্রাউজিং সেশনটি শেষ হয়ে যায়।
ইনকগনিটো ট্যাব এর নতুন সেশনে জেনারেট হওয়া সকল ক্যাশ, কুকিজ এবং হিস্টোরি সবকিছু ডিলিট করে দেওয়া হয়, যাতে এরপর অন্য কেউ এই ব্রাউজারটি ব্যবহার করলে তার কাছে ইনকগনিটো মোডে ব্রাউজ করা কনটেন্ট গুলোর কোনো ডাটার কোনো রকম ট্রেস না থাকে।

ইনকগনিটো ট্যাব এর মাধ্যমে কিন্তু বিশেষ কিছু সুবিধা রয়েছে।
মনে করুন,
আপনার একটা ওয়েবসাইট এ দুইটা একাউন্ট রয়েছে আপনি চাচ্ছেন একই সাথে দুইটা একাউন্ট লগইন করবেন তাহলে কিন্তু ইনকগনিটো ট্যাব এর মতো উপকারী কিছু নাই কারণ আপনি একই ব্রাউজার দ্বারা দুইটা একাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন খুবই সহজেই।

একটু খেয়াল করলে দেখবেন বিভিন্ন ওয়েবসাইট এ ভিন্ন রকমের অ্যাডস ব্যবহার করা হয় ইনকাম এর উদ্দেশ্য নিয়ে। তারা অনেকেই ইনকগনিটো ট্যাব ব্যবহার করে অ্যাডস এ ক্লিক করে ইনকাম করে থাকে অনেক বেশীই কারণ হলো ইনকগনিটো ট্যাব ব্যবহার এর ফলে কোম্পানি ঠিক করে দিতে পারে না আপনার অ্যাডস ক্লিক টার্গেট।

আপনার পার্সোনাল কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে আপনি যখন ইনকগনিটো ট্যাব ওপেন করার সময় একটু খেয়াল করলে দেখবেন ইনকগনিটো ট্যাব শুরু হওয়ার আগে ওয়ার্নিং বার্তা দেওয়া হয়।
যদিও ইনকগনিটো মোড আপনার মেইন ব্রাউজিং সেশনের কোনো ক্যাশ বা কোনো কুকিজ বা কোনো ডাটা অ্যাক্সেস করে না, তবে আপনার আইএসপি (ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার) বা আপনার নেটওয়ার্ক প্রোভাইডার, আপনার এমপ্লয়ার নেটওয়ার্ক এডমিন এবং আপনি ইনকগনিটো মোডে যে ওয়েবসাইট ভিজিট করছেন সেই ওয়েবসাইটটির সার্ভার চাইলেই আপনাকে ট্র্যাক করতে পারবে।

এর মানে হচ্ছে ইনকগনিটো ট্যাব ব্যবহার করলেও আপনার ব্যবহার করা ব্রাউজিং ডাটাবেজ বা ইত্যাদি সকল কিছু এদের থেকে গোপন থাকবে না। আপনি যদি এতোদিন ইনকগনিটো ট্যাব ব্যবহার করেছেন আপনার পার্সোনাল কোনো কাজে আর তারপর ভেবে বসে আছেন আপনার সকল ব্রাউজার ডাটা সিকিউরড তাহলে আপনি অনেক বড় রকমের ভূল ভেবেছেন।

ইনকগনিটো ট্যাব আপনার শুধুমাত্র সেই সকল ব্রাউজার ডাটাবেজ গুলোকে ট্র্যাক না করার সক্ষমতা দিয়ে থাকে, যেগুলো আপনার ব্রাউজার এর ডিভাইস এ লোকালি স্টোর হচ্ছে। সহজ ভাবে বলতে গেলে কোনো ওয়েবসাইট ব্রাউজ করার সময় আপনার ব্রাউজিং অভ্যাস সম্পর্কে যেসব ডাটা আপনার নিজের ডিভাইসে স্টোর হচ্ছে, ইনকগনিটো মোড শুধুমাত্র সেই ডাটা গুলোকে ট্র্যাক না করার সক্ষমতা দিয়ে থাকে।

আপনি নরমাল ভাবে যখন ব্রাউজিং করেন তখন আপনি আপনার ভিজিট করা ওয়েবসাইট গুলোর সার্ভারের কাছে যে রিকুয়েস্ট সেন্ড করছেন বা সার্ভার থেকে যে সকল রিকুয়েস্ট রিসিভ করছেন সেটা আপনার রিয়েল আইপি এড্রেস এর মাধ্যমেই ঠিক তেমনি এই একই সিস্টেম ব্যবহার করা হয় ইনকগনিটো ট্যাব এ, ইনকগনিটো ট্যাব এ আপনার আইপি এড্রেস ইত্যাদি এইগুলো গোপন রাখে না।

ওয়েব ব্রাউজার আমাদের প্রতিদিনের বহু কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে, ইন্টারনেট এ চলার জন্য ওয়েব ব্রাউজার লাগবেই। আমরা সকল স্মার্ট ওয়েব ব্রাউজার গুলো থেকে ইনকগনিটো ট্যাব চালু করে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এবং পার্সোনাল কাজে ব্রাউজিং করে থাকী। আমাদের গোপন ভাবে ব্রাউজিং করার কাজ সমাপ্ত হওয়ার পর আমরা ইনকগনিটো ট্যাব ক্লোজ করে দিয়ে থাকী এবং এতে করে আমাদের সকল ডাটাবেজ গুলো রিমুভ হয়ে যায়। কিন্তু এটাতেও সম্পূর্ণ আপনার ব্রাউজার ডাটাবেজ সিকিউরড ভাবে রিমুভ হয় না যদি কেউ খুব ভালো একটা সফটওয়্যার ব্যবহার করে এই ইনকগনিটো ট্যাব এর সকল ব্রাউজিং ডাটাবেজ উদ্ধার করতে পারবে।
Newer Posts Older Posts

Related posts