ম্যাক এড্রেস কী এবং এর বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন।

ম্যাক এড্রেস কী এবং এর বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন।

ম্যাক এড্রেস হলো এমন একটা এড্রেস বলতে পারেন এটার জন্য যেকোনো হ্যাকার অনেক সময় সমস্যায় পড়ে যাই, অনেকেই আছেন যারা নতুন হ্যাকিং বিদ্যা শিখতেছেন। আইপি এড্রেস বদলিয়ে নিয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইট এ প্রবেশ করে ডর্ক লিস্ট দিয়ে ঢুকার চেষ্টা করে এই রকম অনেক দূর্বল ওয়েবসাইট ডর্ক ব্যবহার করলে খুঁজে পাওয়া সম্ভব।

 ম্যাক এড্রেস কী এবং এর বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন।
 ম্যাক এড্রেস কী এবং এর বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন।


Media Access Control Address – কে MAC Address বলা হয়ে থাকে। আপনারা অনেকেই হয়তো জানেন যে ভারর্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে আইপি এড্রেস বদলিয়ে নেওয়া খুবই সহজ। ভারর্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে আপনি যখন কোনো ওয়েবপেজ এ যান তখন আপনার নেটওয়ার্ক ভারর্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক – কে রিকুয়েস্ট পাঠাই এবং ভারর্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক তখন আপনার নেটওয়ার্ক এর রিকুয়েস্ট ওয়েটিং এ রাখে এবং তাদের সার্ভার এর আইপি এড্রেস দিয়ে ওই ওয়েবপেজ এ কানেক্ট করে আপনার আইপি এড্রেস এ রিডাইরেক্ট করে ঠিক তখনি আপনি ভারর্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে অন্য আইপি এড্রেস ব্যবহার করে ওয়েবপেজ এ ডিসপ্লে হওয়া কনটেন্ট গুলো দেখতে পান।

নেটওয়ার্কের যোগাযোগই ম্যাক এড্রেসের মাধ্যমে হয়। আইপি এড্রেস পরিবর্তন হয় কিন্তু ম্যাক পরিবর্তন হয় না সহজে, ম্যাক এড্রেস এর বিষয় সাধারণ ভারর্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারী এটা বুঝে না তারা ভেবে থাকে আইপি এড্রেস পরিবর্তন করলে তারা ১০০% সিকিউরিটি পেয়ে থাকে কিন্তু এটা তাদের ভূল ধারণা।

ম্যাক এড্রেসের প্রথম অর্ধেক বুঝায় ডিভাইসটি কোন মডেল বা কোন ব্রান্ডের আর বাকী অর্ধেকটি হচ্ছে ওই ডিভাইস এর অন্য ইউনিক নম্বর। ম্যাক এড্রেস কেমন হয় এটা অবশ্যই জানেন 09:3v:ca:44:69:8f একদম এই রকমই হয়ে থাকে। এই ম্যাক এড্রেস এর সাহায্য এ প্রতিটি আলাদা আলাদা ডিভাইস – কে চিনতে সাহায্য করে। আইপি এড্রেস ইন্টারনেট এ রিকুয়েস্ট পাঠানোর কাজ করে থাকে এটা ডিভাইস এর সাথে সম্পর্কিত না কিন্তু ম্যাক এড্রেস হলো ডিভাইস এর সাথে সম্পর্কিত।

অনেক সময় একটা ডিভাইস এ বেশ কয়েকটা ম্যাক এড্রেস পাওয়া যাই WiFi MAC Address এবং Bluetooth MAC Address এটা আপনার ফোনের সেটিংস এ গেলেই দেখতে পাবেন।
Newer Posts Older Posts

Related posts